১৫ দিনে সংশোধন করা যাবে জাতীয় পরিচয়পত্র


অনলাইন ডেস্ক ::নাগরিকদের সেবাদিতে অনলাইন ই-সিস্টেম চালু করছে নির্বাচন কমিশন। এ সিস্টেম চালু হলে ১৫ দিনে জাতীয় পরিচয়পত্র উত্তোলন, ঠিকানা স্থানান্তর এবং সংশোধন করা যাবে।

রোববার (২২ অক্টোবর) জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের ডিজি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম বলেন, হারানো কার্ড উত্তোলন, ঠিকানা স্থানান্তর এবং ভুল সংশোধন করার ক্ষেত্রে মানুষের দুর্ভোগ কিভাবে কমানো যায়; সে লক্ষ্যে কার্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে পরিবর্তন আনা হয়েছে। এ পদ্ধতি চালু করা হলে একটি জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনসহ সব প্রক্রিয়া যেমন আবেদনপত্রটি নিষ্পত্তির জন্য সর্বোচ্চ ১৫ থেকে ৩০ দিন সময়ের মধ্যে শেষ করতে চিন্তাভাবনা করছি। কারণ দুর্ভোগের সঙ্গেই আমাদের সবকিছু সম্পৃক্ত। এমনকি কেউ যাতে কোনো অন্যায় কাজে জড়িত না হতে পারে-এ সফটওয়্যার কর্তৃপক্ষের জন্য সহায়ক হবে।

তিনি বলেন, মূলত দুটি কারণে এই পদ্ধতিতে যাচ্ছি আমরা। এর একটি মানুষের সেবাটা তাদের দ্বার প্রাপ্তে পৌঁছে দেওয়া। অন্যটি যত দ্রুত সময়ের মধ্যে কাজটি সম্পন্ন করা সম্ভব। এর মাধ্যমে মানুষের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসবে এবং তাদের ন্যায্য অধিকারটা সঠিক সময়ে পাবেন।

ডিজি বলেন, আগে এই কাজটির জন্য কখনো ৪৫ দিন সময় লাগত, আবার ক্ষেত্র বিশেষে তিন মাসের বেশি সময় লাগত। এখন একই ধরনের সেবা পেতে গ্রাহকদের অপেক্ষা করতে হবে মাত্র ১৫ থেকে ৩০ কার্যদিবস। এ কাজটি যাতে যেকোনো মূল্যে করতে পারি, সেই প্রচেষ্টাই করা হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, কাজটির জন্য উপজেলা অফিসে ১০ দিন, জেলা ও আঞ্চলিক অফিসে তিন দিন করে ৬টি এবং এনআইডি উইংয়ে ১০ দিন এবং পাঠাতে ৪ দিনসহ মোট ৩০ দিন নির্ধারণ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, দেশে বর্তমানে ১০ কোটি ১৭ লাখ নাগরিক ভোটার পরিচয়পত্রের আওতায় এসেছেন। এসব নাগরিকদের মধ্যে অসংখ্য নাগরিকের পরিচয়পত্রে ভুল রয়েছে।

##

Advertisements

নারীদের জন্য বিশেষ ইন্টারনেট প্যাকেজ, ৮ টাকায় ১ জিবি ডাটা


বিনোদন ডেস্ক::  টেলিটকের নতুন প্যাকেজ ‘অপরাজিতা’ সিমের উদ্বোধন করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। রবিবার রাষ্ট্রীয় মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটকের প্যাকেজটি উদ্বোধন করেন তিনি।

এসময় মন্ত্রী ঘোষণা দেন, সারাদেশে বিনামূল্যে ২০ লাখ সিম বিতরণ করবে টেলিটক। এখন কম মূল্যে কল করা ও ইন্টারনেট ব্যাবহার করতে পারবেন নারীরা। ৮ টাকায় সপ্তাহে ১ জিবি ১৪ টাকায় ২ জিবি ব্যাবহার করা যাবে। আজ থেকে বিনামূল্যের সিম পাওয়া যাবে টেলিটকের রিটেইলার সেন্টার থেকে।

মন্ত্রী মনে করেন, নারীদের জন্য এমন বিশেষ ইন্টারনেট প্যাকেজ ‘নারীর ক্ষমতায়নে’ ভূমিকার রাখবে।

তিনি বলেন, একনেকে অনুমোদন হওয়া এবং প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনের পরেও টেলিটকের নেটওয়ার্ক উন্নয়ন প্রকল্পে অর্থ ছাড় করছে না মন্ত্রণালয়। টেলিটকের নেটওয়ার্ক উন্নয়নে প্রস্তাবিত ৬১০ কোটি টাকার প্রকল্প ছাড়ের জন্য অর্থ মন্ত্রণালয়ের প্রতি আবারও আহ্বান জানান মন্ত্রী।

মন্ত্রী আরও বলেন, সাবমেরিন ক্যাবলের সংস্কারের কারণে আগামী তিন দিন ইন্টারনেট সংযোগে গতি কম পাওয়া যাবে।

##

ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলেন ময়মনসিংহের তারাকান্দা থানার এসআই বিপ্লব মহন্ত


অনলাইন ডেস্ক ::হিন্দু থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন ময়মনসিংহের তারাকান্দা থানার এসআই বিপ্লব মহন্ত । তিনি তার স্ত্রীসহ ইসলাম ধর্ম গ্রহন করে নিজের নাম রাখেন মুহাম্মদ বিপ্লব হোসাইন এবং তার স্ত্রীর নাম রাখেন শারমিন আক্তার।

ময়মনসিংহের তারাকান্দা থানার এসআই বিপ্লব মহন্ত কালিমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।
শুক্রবার (২০ অক্টোবর) মাগরিব নামাজের আগে ভাড়াটিয়া বাড়িতে তারাকান্দা পুরাতন এস আর অফিস রোড মসজিদের ইমাম মাওলানা আব্দুল মালেকের মাধ্যমে তারা ইসলাম গ্রহণ করেন।

নওমুসলিমমুহাম্মদ বিপ্লব হোসাইন সবার দোয়া কামনা করেছেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব জিকরুল হক, মাওলানা আনোয়ার হুসেইন, ফজলুর রহমান সরকারসহ গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ।

তারাকান্দা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন তালুকদার মোবাইল ফোনে মুহাম্মদ বিপ্লব হোসাইনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

বিপ্লব মহন্ত তার নিজ ফেইসবুক আইডি থেকে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করা বিষয়ে স্টেস্টাস দিয়েছেন।

স্বেচ্ছায় নাকি কারো প্ররোচনা বা জোর পুর্বক ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেছেন? এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেছেন, ‘না , কারো প্ররোচনায় নয়, আমি সস্ত্রীক স্বেচ্ছায় ইসলাম ধর্ম গ্রহন করেছি, ইসলাম কে ভালবেসে। ’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের হিন্দু ধর্মে পথের শেষ নেই, কালী পূজা, দুর্গা পূজা আরো কত কি? কিন্তু ইসলাম ধর্মে পথ একটাই তা হলো আল্লাহর রাস্তা। এজন্যই আমি ইসলামকে ভালবেসেই মূলত ইসলাম গ্রহণ করেছি এবং নতুন নাম রেখেছি মো: বিপ্লব হোসাইন। ’

এসআই বিপ্লবের স্ত্রী বলেন, ‘আমিও স্বেচ্ছায় ইসলাম গ্রহণ করেছি, আমার স্বামী বা কারো প্ররোচনায় নয়, ইসলাম ভালো লাগে তাই মুসলমান হয়েছি, আমার আগের নাম ছিল মন, এখন আমার নাম শারমিন আক্তার। ’

এসআই বিপ্লব হোসাইনের গ্রামের বাড়ি জামালপুর জেলার সরিষাবাড়ী থানায়। বর্তমানে তিনি ময়মনসিংহের তারাকান্দা থানায় কর্মরত আছেন।

ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করায় তাদের স্বাগত জানিয়েছেন জনপ্রতিনিধিসহ এলাকার সর্ব স্তরের মানুষ।

সূত্র: মূল সংবাদটি এখান থেকে এসেছে

১৯ বছরেই ১৩০ কোটি টাকার মালিক


অনলাইন ডেস্ক : আর পাঁচটা স্কুল পড়ুয়ার মতো পকেটমানির চিন্তা করতে হয় না অক্ষয় রুপারেলিয়াকে। কারণ মাত্র ১৯ বছর বয়সেই ১৩০ কোটিরও বেশি টাকার মালিক তিনি।

উত্তর লন্ডনের বাসিন্দা ভারতীয় বংশোদ্ভূত অক্ষয় সম্প্রতি ব্রিটেনের কমবয়সী কোটিপতিদের তালিকায় নাম তুলে ফেলেছেন। এক বছরেই তার সম্পত্তির পরিমাণ ১৩০ কোটি ৯১ লাখ টাকা।

স্কুলে পড়াশোনার ফাঁকে ফাঁকেই নিজের অনলাইন ব্যবসা সামলেছেন অক্ষয়। নামমাত্র মূল্যের বিনিময়ে সম্পত্তি কেনাবেচায় মানুষজনকে সাহায্য করে তার সংস্থা ‘ডোরস্টেপস ডট কো ডট ইউকে’। ১৬ মাস আগে সংস্থার পথচলা শুরু। এই মুহূর্তে যা এখন ব্রিটেনের বৃহত্তম সংস্থাগুলির মধ্যে ১৮ নম্বরে রয়েছে।

শুরুর দিনগুলির কথা বলতে গিয়ে অক্ষয় বলেন, ‘এক আত্মীয় থেকে টাকা ধার করে তার প্রতিষ্ঠানের একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেন। সংস্থার ওয়েবসাইট চালুর সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই সাসেক্সের এক জনের কাছ থেকে ফোন কল আসে। সেখানে তাঁ একটি বাড়ি রয়েছে। সঙ্গে একফালি জমি। দুটোই বেচতে চান তিনি।’ সে সুযোগ হাতছাড়া করেননি অক্ষয়। সঙ্গে সঙ্গে ছুটে গিয়েছিলেন সাসেক্সে। নিজের গাড়ি ছিল না। ড্রাইভিং লাইসেন্স তো দূরের কথা। ফলে ভগ্নীপতিকে ৪০ পাউন্ড দিয়েছিলেন তাকে সাসেক্সে পৌঁছে দেয়ার জন্য। সাসেক্সে পৌঁছে সেই জমি-বাড়ির ছবি তুলে আনেন অক্ষয়। এরপর তা বিক্রি করেছিলেন তিনি। সেই শুরু।

কৌশিক এবং রেনুকা রুপারেলিয়ার ছেলেকে এর পর আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। কেয়ার ওয়ার্কার কৌশিক এবং স্কুলশিক্ষিকা রেনুকা— দুজনেই বধির। ছেলের সাফল্যে স্বাভাবিকভাবেই গর্বিত তারা।

অক্ষয়ের সাফল্যের মতো তার ব্যবসার পদ্ধতিও খানিকটা আলাদা। স্যুট-বুট পরা ঝাঁচকচকে এস্টেট এজেন্টের বদলে তার ব্যবসায় কর্মী হিসেবে রয়েছেন মধ্যবয়সী গৃহিনীরা। তারাই ক্রেতাদের ঘর-বাড়ি দেখাতে নিয়ে যান। এই মুহূর্তে তার সংস্থায় কাজ করেন ১২ জন কর্মী। তা এমন মধ্যবয়সী গৃহিনীদের ওপরেই ভরসা কেন অক্ষয়ের?

তিনি বলেন, ‘মায়েদের ওপরে ক্রেতাদের আস্থা আছে। আর মায়েরা সত্যি কথা বলেন! এই ব্যবসায় সেটা খুবই জরুরি। কারণ যারা নিজেদের ঘর-বাড়ি বিক্রি করছেন, বেশির ভাগের ক্ষেত্রেই তা তাদের জীবনের সবচেয়ে বড় লেনদেন।’

মা-বাবার থেকে আর পকেটমানি নেন না অক্ষয়। বরং তিনিই মা-বাবাকে আর্থিকভাবে ভরসা দেন। আর পাঁচটা স্কুলপড়ুয়ার মতো নন তিনি। না হলে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থনীতি ও অঙ্ক নিয়ে পড়াশোনার সুযোগ ছেড়ে দেন! কারণ ব্যবসায় মন দিতে চান অক্ষয়। তবে একটা সাধ এখনও মেটেনি তার। ব্যবসার মুনাফা থেকে প্রতি মাসে টাকা জমানো শুরু করেছেন। একটা গাড়ি কিনতে চান অক্ষয়।

##

৩ দিনের জন্য বন্ধ থাকবে বাংলাদেশের ইন্টারনেট


অনলাইন  ডেস্ক-বাংলাদেশের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল (সি-মি-উই-৪) আগামী ২২ অক্টোবর থেকে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। তবে বিকল্প ব্যবস্থায় দেশে ব্যান্ডউইথ সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবল (সি-মি-ইউ-৫) ব্যবহার করা হবে।

মূলত ক্যাবল মেরামত ও সংস্কার কাজের জন্য দেশের প্রথম সাবমেরিন ক্যাবলটি বন্ধ রাখা হবে। এতে ব্যান্ডউইথ ঘাটতিতে ওই সময় ইন্টারনেট সেবায় ভয়াবহ বিপর্যয় দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্ট খাতের সঙ্গে সম্পৃক্তরা।

বর্তমানে দেশে ব্যবহৃত মোট ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের পরিমাণ ৪৪০ জিবিপিএস। এর মধ্যে ৩০০ জিবিপিএসই আসছে প্রথম সাবমেরিন ক্যাবল থেকে। অন্যদিকে, দ্বিতীয় সাবমেরিন ক্যাবলের (সি-মি-ইউ-৫) সক্ষমতা মাত্র ১০০ জিবিপিএস। এতে করে প্রায় ১৫০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ ঘাটতিতে পড়বে দেশ।

এদিকে, সরকারি প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) এর পক্ষ থেকে দেশের ইন্টারনেট সেবাদাতা সংগঠনসহ সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে ঐ তিন দিনের প্রস্তুনি নেওয়ার জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে।

সরকারি প্রতিষ্ঠান বিএসসিসিএল বলছে, ওই তিনদিন ব্যান্ডউইথ ঘাটতির পরিমাণ মোট চাহিদার চেয়ে ৫০ জিবিপিএসেরও কম হবে। তবে ইন্টারনেট সেবাদান প্রতিষ্ঠানগুলোর দাবি- ওই সময় ব্যান্ডউইথের ঘাটতি থাকবে ২০০ জিবিপিএসেরও বেশি। ফলে ওই সময় দেশে ভয়াবহ ইন্টারনেট বিপর্যয়ের আশঙ্কা দেখছেন তারা।

বিএসসিসিএলের ব্যবস্থাপক মো. মনোয়ার হোসেন বলেন, ‘সাবমেরিন ক্যাবল মেরামত ও সংস্কার একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। অনেকদিন হয়ে গেছে মেরামত করা হয় না। এ মাসের ৩ দিন সি-মি-উই-ফোর মেরামতের কাজ চলবে।’

মো. মনোয়ার হোসেন আরও বলেন, ‘ভারতে যে ১০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ রফতানি করা হয়, তা কক্সবাজার লিংক থেকে পাঠানো হয়। বন্ধের ওই তিন দিন কুয়াকাটা থেকে ব্যান্ডউইথ ঢাকায় এনে তা আবার কক্সবাজার নেয়া হবে। সেখান থেকে কুমিল্লা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া হয়ে আগরতলা পৌঁছানো হবে।’

##

এবার আপনিও হতে পারেন ফেসবুক সেলিব্রিটি


অনলাইন ডেস্ক : এখন সোশ্যাল মিডিয়ার যুগ। বাচ্চা থেকে বুড়ো সকলেই দিনের অর্ধেক সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় থাকতে পছন্দ করে।বর্তমানে গোটা বিশ্বে অনেক মানুষই আছেন যাদের মানুষ চেনে তাদের দারুণ ফেসবুক পেজের জন্য।

ফেসবুক অ্যাকাউন্টের জন্য আপনাকে আলাদা করে চিনবে মানুষজন। কিন্তু দেখা যায়, ভাল পোস্ট করলে বা ভাল ছবি আপলোড করলেও সবসময় ভাল সাড়া পাওয়া যায় না। এতে মন খারপ হয়ে যায় অনেকের। আর মন খারাপ হওয়াটায় স্বাভাবিক এত ভালো কিছু পোস্ট করেও আপনি তেমন পরিচিতি পাচ্ছেন না সকলের কাছে। তবে বলে রাখি এমনটা হচ্ছে হয়তো আপনার কিছু ভুলের জন্যে। সে ভুলগুলো শুধরে নিলেই আপনি হয়ে যাবেন ফেমাস এবং ধীরে ধীরে আপনিও হয়ে উঠবেন একজন ফেসবুক সেলেব্রিটি।

নিজের উৎসাহের বিভিন্ন গ্রুপে যোগ দিন। মতামত বিনিময় করুন।

পারলে কয়েকজন ফেসবুক সেলিব্রেটিদের সঙ্গে বন্ধুত্ব করুন। পোস্ট দেওয়ার সময়টা খুব গুরুত্বপূর্ণ। ছুটির দিনে রাতে বা ছুটির আগের দিনে রাতে ফেসবুকের পোস্ট খুবই কার্যকরী।
১. ফেসবুকে আজকাল অনেক ভালো ভালো গ্রুপ আছে। এইসব গ্রপের সক্রিয় সদস্য হয়ে যান, সকলের সাথে পরিচিয় বাড়ান। সেখান থেকে বেছে বেছে পছন্দের মানুষের অ্যাড করুন। দেখবেন ভারি হচ্ছে আপনার ফ্রেন্ড লিস্ট।

২. অশ্লীল বা সাম্প্রদায়িক পেজে লাইক দেওয়া থেকে বিরত থাকুন। পোস্ট ও পেজের কনটেন্ট পাবলিক করে রাখুন। বিভিন্ন গ্রুপে যোগ দিন

৩. ফেসবুকের মাধ্যমে সামাজিক কর্তব্য পালন করুন। সেটা রক্তদান হতে পারে, দুঃস্থদের পাশে দাঁড়ানো হতে পারে কিংবা অন্য কিছুও হতে পারে। ফেসবুক ফ্রেন্ড সার্কেলে থাকা সকলের জন্মদিনের ‘‌রিমাইন্ডার’‌ দেয়। জন্মদিনে বন্ধুদের ‘‌উইশ’‌ করতে ভুলবেন না।

৪. নিজের রসবোধকে কাজে লাগান। মানুষকে দৃষ্টি আকর্ষণের সবচেয়ে সহজ উপায় হল রসবোধ। আপনি যে বিষয় নিয়ে উৎসাহী, সেই বিষয়ের একটি পেজ শুরু করুন।

৫. নিয়মিত প্রোফাইল পিকচার বদলান। যিনি ছবি তুলে দিচ্ছেন, তার নাম উল্লেখ করতে ভুলবেন না।

৬. গান, সিনেমা, বই এমন নানা জিনিসের রিভিউ দিন। তবে যা নিয়ে আপনার জ্ঞান কম, সেটা নিয়ে লিখতে যাবেন না।

৭. বন্যা, ভূমিকম্পের মতোর আপৎকালীন বিষয়ে যত পারবেন, খবর শেয়ার করুন। সাম্প্রতিক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে নিজের বক্তব্য নিয়ে পোস্ট দিন। তবে সেই ঘটনার বিশ্লেষণ যেন যুক্তিপূর্ণ হয়।

৮. গুরুত্ব বুঝে লাইক দিন। সবকিছুতে লাইক ঠুকে দিলে আপনিই গুরুত্ব হারাবেন। নিতান্ত দরকার না হলে কিংবা পোস্টের সঙ্গে প্রাসঙ্গিক না হলে শুধুমাত্র লাইকের লোভে কাউকে ট্যাগ করবেন না। এতে অনেকেই বিরক্ত হন।

৯. যতটা পারবেন, নিজে থেকে বন্ধুত্বের অনুরোধ পাঠানোর থেকে বিরত থাকুন। কেউ বন্ধুত্বের অনুরোধ প্রত্যাখান করলে তাকে উত্যক্ত করবেন না।

##

ব্র্যাকে একটি পদে ৬০০ জনের চাকরির সুযোগ


একটি পদে ৬০০ জনের চাকরির নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ব্র্যাক এন্টারপ্রাইজ। প্রতিষ্ঠানটি লোন অফিসার পদে ৬০০ জনকে নিয়োগ দেবে। এই পদে পুরুষ এবং নারী উভয়ই আবেদন করতে পারবেন।

পদের নাম: লোন অফিসার

যোগ্যতা:
-যেকোনো স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান থেকে স্নাতকোত্তর উত্তীর্ণ
-সব পরীক্ষায় ন্যূনতম দ্বিতীয় বিভাগ/শ্রেণি/সমমানের জিপিএ/সিজিপিএ ২.০০
-শিক্ষাজীবনে কোনো একটি পরীক্ষায় তৃতীয় শ্রেণি/বিভাগ/সমমান জিপিএ/সিজিপিএ প্রাপ্তরা আবেদন করতে পারবেন
-বয়স সীমা সর্বোচ্চ ৩৫ বছর
বেতন: ২০ হাজার ৮৭২ টাকা

আবেদনের সময়সীমা: ২০ অক্টোবর, ২০১৭

আবেদন প্রক্রিয়া: আগ্রহী প্রার্থীকে তাঁদের মোবাইল নম্বরসহ জীবনবৃত্তান্ত, সব প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সনদপত্র, জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি এবং সাম্প্রতিক তোলা দুই কপি পাসপোর্ট আকারের রঙিন ছবিসহ ‘ব্র্যাক হিউম্যান রিসোর্স অ্যান্ড লার্নিং ডিভিশন, আরডিএ সেকশন, ব্র্যাক সেন্টার (৫ম তলা), ৭৫ মহাখালী, ঢাকা-১২১২’ এই ঠিকানায় আবেদন করতে হবে। আবেদনপত্র ও খামের ওপর আবেদনকৃত পদের নাম AD#১৭/১৭ উল্লেখ করতে হবে।

সূত্র: সংবাদটি এখান থেকে এসেছে

মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’-এর মুকুট হারাতে যাচ্ছেন জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল


সারাদেশ ব্যাপী সমলোচনার এ পর্যায়ে জানা গেলো, ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’-এর মুকুট হারাতে যাচ্ছেন জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল। প্রতিযোগিতার প্রধান শর্ত ভঙ্গের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় এমন শাস্তির মুখোমুখি হতে হচ্ছে ‘বিবাহিত’ এই তরুণীকে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বিয়ে ও বিয়ে বিচ্ছেদের খবর গোপন রেখে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন চট্টগ্রামের মেয়ে আমিনা তথা এভ্রিল। ভাগ্য সুপ্রসন্ন হওয়ায় সেরাও নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। যদিও বিতর্কিতভাবে তাকে মুকুট দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ ছিলো শুরু থেকেই। দু’দিন না যেতেই ‘ভাগ্যের নির্মম পরিহাস’-এর পাত্রী হলেন তিনি। ‘প্রতারণা’র প্রমাণ হাতে আসায় মুকুট কেড়ে নেওয়া হচ্ছে তার।

এ ব্যাপারে আয়োজক প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজ ও অমিকন এন্টারটেইনমেন্ট আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবে। জানা গেছে, মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে সংবাদ সম্মেলনে ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’-এর নতুন বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে। পাশাপাশি কেড়ে নেওয়া হবে এভ্রিলের মুকুট।

কে হতে যাচ্ছেন ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’— এমন প্রশ্নের জবাব মেলেনি এখনও। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে, প্রথম রানার আপকেই এই খেতাব দেওয়া হতে পারে, বিশ্ব আসরে তিনিই প্রতিনিধিত্ব করবেন বাংলাদেশের। এ ক্ষেত্রে ভাগ্য খুলে যেতে পারে জেসিয়া ইসলামের। এখন শুধু দেখার পালা, কোথাকার জল কোথায় গড়ায়।
##0ebc8aeaa60ae95ab1f999b5a7a77826-59cf78604c065

প্রেমের টানে শেরপুরে ছুটে এসে বিয়ে করলেন রুশ তরুণী


প্রেমিকের টানে সুদূর রাশিয়া থেকে শেরপুরে ছুটে এসেছেন সিভেতলেনা। প্রেমিক ধর্মকান্ত সরকারের গলায় মালা পরিয়ে বসেছেন বিয়ের পিঁড়িতে। ধর্মকান্ত শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার সন্ন্যাসীভিটা গ্রামের ধীরেন্দ্র কান্ত সরকারের ছেলে।
গতকাল শুক্রবার রাত ৯টায় শেরপুর শহরের গোপাল জিউর মন্দির প্রাঙ্গণে সনাতন ধর্মমতে যজ্ঞ সম্পাদন করে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। বিয়ের পুরো অনুষ্ঠান পরিচালনা ও তত্ত্বাবধান করেন আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ ইসকন, শেরপুর শাখার সদস্যরা।

এতে উপস্থিত ছিলেন প্রেমিকের পরিবারের লোকজন, বন্ধুবান্ধব ও ইসকন ভক্তসহ প্রায় চার শতাধিক অতিথি। তাদের খাবারের তালিকায় ছিল পুষ্প অন্ন, ভুনা খিচুরি, সয়াবিনের রসাসহ ১৪ প্রকারের নিরামিষ।

পারিবারিক ও ইসকন মন্দির সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৭ সালে এইচএসসি পাসের পর উচ্চতর পড়াশোনার জন্য রাশিয়ায় যান ধর্মকান্ত। ভর্তি হন মস্কোর আছরাখান টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটিতে। সেখানে তেল-গ্যাস-পেট্রল জ্বালানি বিষয়ে মাস্টার্স ডিগ্রি লাভের পর ব্যবসা শুরু করেন তিনি।

একসময় যাওয়া-আসা শুরু হয় মস্কোর ‘ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি ফর কৃষ্ণা কন্সিয়াসনেস’ (ইসকন) প্রতিষ্ঠিত জগন্নাথ বলদেব সুভদ্রা মন্দিরে। ইসকনের নিয়মানুযায়ী মন্দিরের বিভিন্ন সেবামূলক কাজের সঙ্গে যুক্ত হন তিনি।

এর সূত্র ধরে এক মাস আগে বাংলাদেশে আসেন সিভেতলেনা। তারা কিছুদিন সন্ন্যাসীভিটায় থেকে চলে আসেন শেরপুর শহরের ইসকন মন্দিরে। দুইজনই যুক্ত হন এ মন্দিরের সেবামূলক কাজের সঙ্গে। পরে তারা পরস্পরের ইচ্ছায় প্রেমকে পরিণয় দিতেই বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এরপর সনাতন ধর্মীয় আচার অনুযায়ী শুক্রবার রাতে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়।

ধর্মকান্ত সরকার জানান, বর্তমানে তিনি রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে হোটেল ব্যবসা করছেন। ২০১২ সালে মস্কোতে সভেতলেনা আর তিনি নিজেদের দীর্ঘদিনের জানাশোনা থেকেই পরস্পরের গলায় মালা পরিয়ে বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তারা দুইজনই নিরামিশাষী এবং ইসকন অনুসারি। তারা যাতে দাম্পত্য জীবনে সুখী হতে পারেন সেজন্য সবার প্রার্থনা কামনা করেছেন। ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রাশিয়ার আইন অনুসারে তারা বিয়ের জন্য নিবন্ধনের আবেদন করেছেন বলেও জানান।

শেরপুর জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি দেবাশীষ ভট্টাচার্য বলেন, “প্রেমের টানে বাংলাদেশে ছুটে আসা রাশিয়ান কন্যা সেভেতলানা’র সঙ্গে নালিতাবাড়ী সন্ন্যাসীভিটা গ্রামের ধর্মকান্ত সরকারের বিয়ে হিন্দু ধর্মমতে সম্পন্ন হয়েছে। ধর্মকান্ত সরকার রাশিয়ায় থাকতেই তাদের মাঝে পরিচয়, অতঃপর প্রেম এবং পরিণয়। আমরা তাদের সুখী দাম্পত্যজীবন কামনা করি। ”

শেরপুর ইসকনের সেবায়েত অপূর্ব জগন্নাথ দাশ ব্রহ্মচারী জানান, শুক্রবার রাত ৯টায় গোপাল জিউর মন্দির প্রাঙ্গণে ধর্মকান্ত সরকার ও সিভেত লেনার বিয়ে কাজ সম্পন্ন হয়েছে। তাদের ভালোবাসার পরিণতি বিয়েতে রূপ পেয়েছে।

##

‘ঈদ’ বানান পরিবর্তন করে ‘ইদ’ করার প্রস্তাব, সমালোচনার ঝড়


বাংলা একাডেমি বাঙালির বহুদিনের অভ্যস্ত বানান ‘ঈদ’ পরিবর্তন করে ‘ইদ করার প্রস্তাব করেছে। এতদিনের বানান ‘ঈদ’ এ হ্রস্ব-ই ব্যবহারের প্রস্তাবে সচেতন শিক্ষিত সমাজে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে। বাংলা বানান সহজতর করার প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে ‘ঈদ’ বানানের এরূপ পরিবর্তন করা হয়েছে বলে জানা গেছে। আকস্মিক এ পরিবর্তনে ‘ঈদ’ বানানে অভ্যস্ত বাঙালিরা মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে ফেসবুকে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় তুলেছেন।

সাহিত্য সমালোচক, কবি ও ভাষাতাত্ত্বিক সাখাওয়াত টিপু তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘’ইদ’ নয়, লিখুন ‘ঈদ’। ‘ইদ’ শব্দ ভুল! এক ভাষা থেকে অন্য ভাষার শব্দ তার ভাব ও ধ্বনিগতভাবে শব্দ আত্মীয়করণ করে। গায়ের জোরে শব্দ বিকৃতকরণ ভাষার ফ্যাসিবাদ। এটা বল প্রয়োগের সংস্কৃতি!’

সাখাওয়াত টিপু আরেকটি ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘ঈদ’ বানান এভাবে ‘ইদ’ বললে ‘ইঁদুর ইঁদুর’ কালচার মনে হয়। আরবি ‘ঈদ’ মানে ‘আনন্দ’। কিন্তু ‘ইদ’ মানে কি আনন্দ’?

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রাহেল রাজীব লিখেছেন, ‘এক সময় বিদেশি শব্দ Dacca থেকে Dhaka করা হয়েছে, তাতে ঢাকা ঢাকা পরেনি। বিদেশি শব্দের বাংলা ভাবানুবাদে, অনুবাদে বা আক্ষরিক অনুবাদে খুব বেশি প্রভাব পরে না। এখন তিন দশক ধরে ১৪ এপ্রিল পহেলা বৈশাখ নির্ধারিত তারিখ, কিন্তু পহেলা বৈশাখ নির্ণিত হতো পঞ্জিকা অনুসারে। পার্শ্ববর্তী বাংলা অঞ্চলে (ভারতের একটি প্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ) পহেলা বৈশাখ ১৫ এপ্রিল। এই ১৪ এপ্রিল নির্ধারণ করা নিয়ে কোনো প্রভাব বৈশাখে আসেনি। সুতরাং বিদেশি শব্দ ঈদ, ইদ হলে ঈদের/ইদের আচারে প্রভাব পরবে না। পরার/পড়ার কথা না। পড়া ও পরা নিয়ে তর্ক হতে পারে!

এক প্রশ্নের জবাবে রাহেল রাজীব বলেন, ‘দুটোই শুদ্ধ। তবে ‘ঈদ’ ব্যবহার বাঞ্ছনীয়, ‘ইদ’ ব্যবহারও শুদ্ধ। তবে প্রেফারেন্স পাবে ঈদ। বিদেশি শব্দের বানানের ক্ষেত্রে আমরা তেমন নিয়ম মানি না। কারণ সেই ভাষা জ্ঞান আমাদের অধিকাংশ ক্ষেত্রে ভাসা ভাসা পর্যায়ের। ইংরেজি, আরবি, ফারসি, ফরাসি, স্প্যানিশ কিংবা অন্যান্য বানানের ক্ষেত্রে সহজাত প্রচলিত বানানকেই গ্রহণ করা হয়ে থাকে। আইপিএ তে বিদেশি শব্দের বাংলা শব্দ করলে অনেক সময় উচ্চারণ অযোগ্য শব্দবন্ধ তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা থাকবে। তাই বিদেশি ভাষার ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত বানানকে অনুসরণ করা ভাষার শব্দ ভাণ্ডারের জন্য যৌক্তিক’।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ ঘোষ গণমাধ্যমকে বলেছেন ‘বছর পাঁচেক আগেও যেখানে ‘ঈদ’ বানান দীর্ঘ-ঈ ছিল এখন তারা হ্রস্ব-ই ব্যবহার করার প্রস্তাব দিয়েছে অভিধানে। বাংলা একাডেমি একটি প্রস্তাবনা করেছে এটি মান্য করতেই হবে এমন কোনো কথা নেই। বানানের ব্যাপারটি পরিবর্তনশীল। এককালে বানান একরকম থাকে, পরবর্তীকালে, উত্তরকালে সেই বানান পরিবর্তিত হয়ে যায়। ১৯৩৬ সাল পর্যন্ত ‘কার্তিক’ বানানে আমরা দুটো ত ব্যবহার করতাম, পূর্ব বানানে রেফ এর পর দুটো ব ব্যবহার করতাম। কিন্তু ১৯৩৬ এর পর একটা ব ব্যবহার করতাম। এরকম বহু বানান পরিবর্তিত হয়েছে। যেমন আরবি, জাপানি, ফরাসি ইত্যাদি বানানে আগে দীর্ঘ-ঈ ব্যবহার করা হত, এখন আমরা হ্রস্ব-ই ব্যবহার করি। বাংলা একাডেমি যেটি বলতে চায় সেটি হল, বিদেশি শব্দের অন্তিমে সবসময় হ্রস্ব-ই ব্যবহার করতে হবে। কলকাতার আনন্দবাজার গোষ্ঠী যেমন চীন শব্দে হ্রস্ব-ই ব্যবহার করে চিন লিখে, গ্রীক কে তারা লেখে গ্রিক হিসেবে’।

একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল থেকে অধ্যাপক বিশ্বজিত ঘোষকে জিজ্ঞেস করা হয়, বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম দীর্ঘ-ঈ ব্যবহার করতেন। তাহলে কেন ঈদ বানান হ্রস্ব-ই দিয়ে লেখার প্রস্তাব আসল? এর জবাবে তিনি বলেন, ঈদ শব্দটি বাংলার এবং বাঙালির উৎসবের সঙ্গে সম্পৃক্ত। কোনো কোনো বানান থাকে যার পরিবর্তন হলে চোখে লাগে। কখনো কখনো আবেগে লাগে, কখনো কখনো বিশ্বাসে লাগে। এর ফলে সমাজে বিপরীত প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হতে পারে। ফেসবুকে অনেকেই এর প্রতিবাদ করে লিখছে। আমার মনে হয় কিছু কিছু শব্দ ব্যতিক্রম বানান নিয়ে থাকতে পারে। যেমন ঈদ এর বেলায় এমনটি হতে পারে। ঈদ বানান যেহেতু আমাদের অপটিকস সহ্য করে নিয়েছে, তাই আমার মনে হয় ঈদ বানান অপরিবর্তিত রাখলে অধিকাংশ বাঙালির কাছে গ্রহণযোগ্য হবে’।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়নের সহকারী অধ্যাপক শেখ আদনান ফাহাদ বলেন, সব শব্দের বাংলায়ন কতখানি জরুরি? আরবি শব্দ ‘ঈদ’ এর অর্থ আনন্দ। কিন্তু দীর্ঘ-ঈ বাদ দিয়ে ঈদ এর আগে ‘ইদ’ করা কি শুধুই বাংলা বানান সংস্কারের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত? নাকি অতি উর্বর কোনো মস্তিস্কের ফল? আমার নাম তো শেখ আদনান ফাহাদ, পুরো আরবি নাম। তাই বলে এর বাংলা করতে হবে? খুব সূক্ষ্ম মস্তিষ্কপ্রসূত ভাবনা থেকে এবার ঈদকে ‘ইদ’ করা হয়েছে। একজন বাঙালি মুসলমান হিসেবে আমি এই বুদ্ধিবৃত্তিক র

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক দূর্ঘনায় নিহত ১০


    চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুরে ট্রাক ও আলমসাধু মুখোমুখি সংঘর্ষে মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনা ঘটে। 

ঘটনস্থলেই মারা যায় ১০ জনএবং আরও ১২জন আহত হয়েছে ৷ সংবাদ পেয়েই ঘটনস্থলে যায় পুলিশ ৷আহতদেরকে নিকটস্থ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে ৷ পুলিশ সবার পরিচয় এখন নিশ্চিত করতে পারিনি৷
কিন্তু প্রাথমিক অবস্থায় পুলিশ ধারণা করছে তাদের প্রায়ই সবাই খেটে খাওয়া দিন—মজুর ৷
তাদের সাথে  ঝুড়ি —কোদাল ইত্যাদি দেখতে পাওয়া যায়৷ পুলিশ বিষয়টি খতিয়ে  দেখছে ৷
##

সাতক্ষীরায় ৮৪ কোটি টাকার বাইপাস সড়কের কাজ উদ্বোধন


বাজারে এল Motorola-র দুর্ধর্ষ এক ক্যামেরা ফোন


অনলাইন ডেস্ক ::চিনের বাজারে মটোরোলা নিয়ে এলো নতুন এক স্মার্টফোন। ফোনটির মডেল নাম মটো ‘গ্রিন পোমেলো’। অ্যানড্রয়েড নুগাট অপারেটিং সিস্টেম চালিত এই ফোনটি মিডরেঞ্জের। মটোরোলার নতুন ফোনটি রোজ গোল্ড ও কুল ব্ল্যাক কালারে পাওয়া যাচ্ছে ১ হাজার ৫৯৯ চায়না ইয়েনে।

গ্রিন পোমেলো ফোনটিতে আছে ৫.২ ইঞ্চির ফুল এইচডি ডিসপ্লে। ডিসপ্লের রেজুলেশন ১০৮০x১৯২০ পিক্সেল। ডিসপ্লের সুরক্ষা জন্য আছে কর্নিং গরিলা গ্লাস প্রটেকশন। ফোনটির রিয়ার প্যানেলে মটোরোলার লোগো ও দুটি রিয়ার ক্যামেরা রয়েছে।

দেখতে আকর্ষণীয় এই ফোনটিতে কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৪৩০ প্রসেসর রয়েছে। যার ক্লকস্পিড ১.৪ গিগাহার্জ। এতে ৪ জিবি র‌্যাম এবং ৩২ জিবি রম রয়েছে। ফোনটির মেমোরি বাড়ানোর সুযোগ আছে।

ছবির জন্য ফোনটিতে আছে ১৬ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ও সেলফি ক্যামেরা। উভয় ক্যামেরায় এলইডি ফ্লাশ ব্যবহার করা হয়েছে। ব্যাকআপের জন্য আছে ২৮০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের। ফোনটিতে ফোরজি নেটওয়ার্ক সমর্থন করে।

##

লজ্জাজনক ভাবে ভারতের বিশাল পরাজয়


অনলাইন ডেস্ক ::বাংলাদেশের বিপক্ষে চলমান ওয়ানডে সিরিজকে নিশ্চিত করে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট দল ভারতকে টপকিয়ে পুনঃরায় আইসিসি ওয়ানডে র‌্যাংকিং তালিকায় নিজেদের শীর্ষস্থান দখল করে নিয়েছে। বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন ভারতীয় ক্রিকেট দল অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৪-১ ব্যবধানে সিরিজে জয়ী হয়ে র‌্যাংকিং তালিকায় শীর্ষে অবস্থান করে নিয়েছিল। ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) এর সর্বশেষ প্রকাশিত ওয়ানডে র‌্যাংকিং তালিকায় দেখা যায় ভারতকে শীর্ষ স্থান হারিয়েছে দক্ষিণআফ্রিকা।

দক্ষিণ আফ্রিকা ও বাংলাদেশের মধ্যকার চলমান তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে সআবাগতিকরা বুধবার (১৮ অক্টোবর) ১০৪ রানের ব্যবধানে জয় লাভ করে। আর এর মাধ্যমে ফাফ ডু প্লেসিসের নেতৃত্বাধীন প্রোটিয়ারা সর্বশেষ ৫২ ম্যাচ থেকে মোট ৬২৪৪ পয়েন্ট অর্জন করে এখন র‌্যাংকিং তালিকায় শীর্ষে ফিরেছেন।

ভারত আগামী ২২ অক্টোবর সফরকারী নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের নিজ মাঠে তিন ওয়ানডে ম্যাচের সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে।

##

মানুষমুখী অদ্ভুত প্রাণীর সন্ধান পাওয়া গেল মালেশিয়ায়


অনলাইন ডেস্ক ::পৃথিবীতে কতই না আজব প্রাণীর বসবাস। তার কতটুকুই বা আমরা জানি আর চিনি। যখনই নতুন কিছু দেখি তা নিয়ে আমাদের মধ্যে কাজ করে রহস্য ও আকর্ষণ; আর এসবের সমন্বয়ে গজায় গল্পের ডালপালা।

সম্প্রতি নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে খবরের সঙ্গে দেয়া অদ্ভুত দর্শন প্রাণীটির ছবি। আর এ নিয়েই ঘটছে রহস্য।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম মিররে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ঘিরে ঘুরছে প্রাণীটির ছবি। এমনকি কয়েক জায়গায় প্রকাশ পেয়েছে এর ভিডিও। সেগুলোয় জানানো হয়েছে, মালয়েশিয়ায় নাকি সন্ধান মিলেছে এ অদ্ভুত প্রাণীর।

ছবিতে দেখা গেছে, প্রাণীটির শারীরিক গঠন অনেকটা বিড়ালের মতো। চারটে পা, একটি লেজও রয়েছে। আবার মুখটা মানব শিশুর মতো।

এখনও প্রাণীটির সত্যি অস্তিত্ব নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা।

অনেকের মন্তব্য- নিছক ফোটোশপের কারসাজি। আবার যারা ভিডিও দেখেছেন, তারা পুরোপুরি অবিশ্বাসও করতে পারছেন না।

তবে মালয়েশিয়া পুলিশের দাবি, এ ছবি সত্যি নয়। ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করা ছবি শুধু আলোড়ন তৈরির জন্যই একটু কারসাজি করে নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

মূল সংবাদ সূত্র পড়তে এখানে ক্লিক করুন

​শেখ রাসেলের ৫৩ তম জন্মদিন আজ


আকরাম হোসেন :: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ ছেলে শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ। ১৯৬৪ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিবিজড়িত ধানমণ্ডির বঙ্গবন্ধু ভবনে শেখ রাসেল জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকদের নির্মম বুলেটে পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে নিহত হন শিশু রাসেল। তিনি ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র ছিলেন।

শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আজ সকালে বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত শেখ রাসেল সহ ১৫ আগস্টে নিহত সব শহীদের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ ,ফাতেহা পাঠ,দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে পাশা পাশি সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন এবং বিভিন্ন সামাজিক  ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসমূহ ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এক বিবৃতিতে শেখ রাসেলের জন্মদিন উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন কর্মসূচি যথাযোগ্য ভাবে পালন করার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

##

মরণঘাতী ব্লু হোয়েল গেমের আসল সত্যতা, সকলের জেনে রাখা জরুরী!


অনলাইন ডেস্ক :: ব্লু হোয়েল গেম নিয়ে সকলের মাথা কমবেশি চিন্তায় মগ্ন। আসলে কিভাবে এই গেম থেকে নিস্তার পাওয়া যায়, সেই চিন্তায় বিভোর অভিভাবকেরা। কিন্তু আসলে এই গেম কোথায় পাওয়া যায়, আর কিভাবে এর বিস্তার আসুন জেনে নেয়া যাক-

১. গেইম টা পিসি গেইম। অর্থাৎ কম্পিউটার ছাড়া এই গেইম মোবাইলে খেলা যায় না।

২. গেইম টা রিয়েল আইপি ছাড়া লগইন করা যায় না।

৩. গেইম টা অনলি ডার্ক ওয়েবে পাওয়া যায়।

৪. ডার্ক ওয়েব যে কেউ চাইলেই লগইন করতে পারবে না।

৫. ডার্ক ওয়েবে আপনি কোন স্ক্রিন শর্ট নিতে পারবেন না।

৬. ডার্ক ওয়েব এর ওয়েবসাইট হয় লিংক নয়। সেসব ওয়েবসাইটে ক্রোম, ফায়ারফক্স মানে নরমাল কিছুর সাহায্যে ঢুকতে পারবেন না।

৭. গেইম টা বিট কয়েন অর্থাৎ ইন্টারনেট কারেন্সি দিয়ে কিনতে হয় । ১ বিট কয়েন = ৪০০০+ ডলার । আর ১ ডলার = ৮২ টাকা।

৮. এটা কোন Apk or exe ফাইল না, ব্রাউজ করে খেলতে হয়।

বাংলাদেশে রিয়েল আইপি ব্যাবহারকারী ফ্রিল্যান্সার ছাড়া কেও নেই বললেই চলে । এছাড়া সবাই অনটাইম টেম্পরারি আইপি ইউজার! তাই এই গেইম বাংলাদেশের কেউ অনলাইন থেকে নামিয়ে খেলবে বলে বিশ্বাস করা দুরূহ।

আর যারা এখন ব্লু হোয়েল গেমস খেলছে বলে দাবি করছে, তারা প্লে স্টোর থেকে রেড ব্লু হোয়েল নামের একটি গেমস খেলতেছে। যা খেললে ভয়াবহতার কিছুই নেই।

##

Best Satkhira Online News Publication

%d bloggers like this: